হিন্দু ধর্ম কি গ্রহণ করা যায়? গ্রহণ করা গেলে গ্রহণের পদ্ধতি কি?

হিন্দু ধর্ম কি গ্রহণ করা যায়? গ্রহণ করা গেলে গ্রহণের পদ্ধতি কি?
? গত কয়েকমাসে হল আমাদের ম্যাসেজ বক্সে বহু মুসলিম বোনদের কাছ থেকে এই প্রশ্ন ম্যাসেজ এ পেয়েছি। আজ আশাকরি, তারা এবং তাদের মতন যাদের মনে এই একই প্রশ্ন রয়েছে সকলেই তাদের উত্তরটা পেয়ে যাবেন। ✏
প্রতিটি মানুষ সনাতনী হয়ে জন্মায়। জন্মের পর তাকে জন্ম সুত্রে বিভীন্ন ধর্মে ধর্মান্তরিত করা হয়। শুধু মাত্র সনাতন ধর্মে কিছুই করতে হয়না। কারন সে জন্ম সূত্রেই সনাতনী।
 আরো দেখুনঃ Mahabharat Download Link
জন্মের পর কাউকে যদি অন্য ধর্মে ধর্মান্তরিত করা হয় তাহলে সে ইচ্ছে করলেই জন্ম গত ধর্মে ফিরে আসতে পারে।
তাহলে দেখা যাচ্ছে, কেউ সনাতন ধর্মে আসতে চাইলে সে যজ্ঞ করে আসতে পারে। তারপর শিক্ষা মন্ত্র ও দিক্ষা মন্ত্র নিতে পারে। সে তখন সম্পুর্ন নিশপাপ হয়েই আসবে।

#_হিন্দুধর্ম_গ্রহন_করার_ঘোষনা… ?
চতুর্থ শতাব্দীতে ঋষি দেবলের ডাকে অভিভক্ত ভারতীয় উপমহাদেশে সমসাময়িক ঋষিদের নিয়ে সিন্ধু তীরবর্তী অঞ্চলে এক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এই সম্মেলনেই হিন্দুধর্ম গ্রহণ করার পদ্ধতি প্রথম প্রকাশ করা হয়।

#_হিন্দুধর্ম_গ্রহণ_করার_জন্য_পবিত্র_বেদের_মন্ত্রঃ
“হে মনুষ্যগণ..! তোমরা ঈশ্বরের মহিমাকে বৃদ্ধি কর, সমগ্র বিশ্বকে আর্যধর্মে দীক্ষিত কর।” (ঋগ্বেদ, ৯/৬৩/৫)
#_কিভাবে_হিন্দুধর্ম_গ্রহন_করা_যায়… ?
শুদ্ধি যজ্ঞ এর মাধ্যমে যেই কেউ হিন্দুধর্ম গ্রহন করতে পারে।

#_কিভাবে_এই_যজ্ঞ_করা_হয়… ?
ঋষি দেবলের “দেবল স্মৃতি” নামক শাস্ত্রীয় গ্রন্থে শুদ্ধি যজ্ঞ এর মন্ত্র ও প্রক্রিয়া লিপিবদ্ধ আছে। সেই অনুযায়ী মন্ত্র পাঠের মাধ্যমে শুদ্ধি যজ্ঞ করে হিন্দু ধর্ম গ্রহন করা যায়।
#_কারা_হিন্দুধর্ম_গ্রহন_করতে_পারে… ?
যে কোনো ধর্মের, যে কেউ চাইলেই হিন্দুধর্ম গ্রহন করতে পারে। শুধু যে জন্ম সুত্রেই সনাতন ধর্মালম্বি হয়া যায় তা নয়। যে কেউই ইচ্ছে করলে সনাতন ধর্ম গ্রহন করতে পারে।
 আরো দেখুনঃ পাকিস্তানের এমপি আলতাফ হুসেইন সনাতন ধর্ম গ্রহন করলেন!
ধরুন আপনি ভালো কাজ করতেন। হঠাৎ কারো প্ররো চনায় পরে চোর বা ডাকাত হয়ে গেলেন। এক সময় বুঝতে পারলে আপনি খারাপ পথে আছেন। তাই সিদ্ধান্ত নিলেন আবার ভালো পথে ফিরে আসবেন।
ঠিক তেমনি কেউ সনাতন ধর্ম থেকে গেলে বা অন্য ধর্মে জন্মালে সনাতন ধর্মে ফিরে আসতে পারবে।
গীতায় ভগবান শ্রীকৃষ্ণ বলেছেন,
শুধু মাত্র তাকে সরন করতে। তিনি সকলকে উদ্ধার করবেন নরক থেকে এবং তার পরম স্থান স্বর্গে জায়গা দেবেন।
তিনি আরো বলেছেন,
তোমরা যোজ্ঞ করো, যজ্ঞ মানুষকে নিশ্পাপ করে। মনিষীরাও যজ্ঞ করতেন। অতএব তোমরাও করো। এতে তোমাদের প্রতি আমার আকর্ষন বারবে।

#_বিশেষভাবে_আলোকপাত_করার_অনুরোধ_করছিঃ
যখন কোনো হিন্দু মেয়ে মুসলিম ছেলের সাথে পালিয়ে যায় তখন অামরা তেলেবেগুনে জ্বলে উঠছি।
কিন্তু যখন কোন হিন্দু ছেলে মুসলিম মেয়েকে বিয়ে করে সনাতন ধর্মে অানতে চায় তখন অামরা ছি ছি করছি কেন?
একদিকে জাতপাতের ঘৃনা ছড়ায়ে মেয়েদের লাভ জিহাদের শিকার করিয়ে দিচ্ছি। অারেক দিকে কোনো হিন্দু ছেলে মুুসলিম মেয়ে বিয়ে করে সনাতন ধর্মে অানতে চাইলে, তাকে তাড়িয়ে দিয়ে ইসলাম গ্রহনে বাধ্য করাচ্ছি।
জাতপাত দূর করো, হিন্দু হলেই বিয়ে করো।
অহিন্দুকে বিয়ে করে, অার্য ধর্মে দিক্ষীত করো।
সকলেরই আড়ষ্টতা থেকে বের হয়ে মুক্তমন ও স্বাধীন ভাবে বাঁচার অধিকার আছে। সনাতনী চিন্তা-চেতনায় আলোকিত হউক সমগ্র সৃষ্টিকুল। ছিল সে একজন অহিন্দু, তাতে কিবা আসে যায়। আজ সে তার আসল সত্ত্বায় ফিরে আসতে চায়, তাতে ক্ষতি কি! প্রকৃত সত্য সনাতন, এর বাইরে কিছু নয়।

#_সনাতনী_প্রার্থনাঃ
হে বিশ্বনিয়ামক!
তোমার নিকট মনের ভাব ব্যক্ত করিয়া তোমারই আমোঘ আশীর্ব্বাদ প্রার্থনা করিতেছি। তোমারই শক্তিবলে সুখে দুঃখে একরকম ভক্তির কার্য্য করিয়াছি। ভাব দাও এবং প্রাণের ভাব ভাষায় সরল ভাবে ব্যক্ত করিবার শক্তি দাও, আমি আনন্দে মনে তোমার লীলা তোমার শক্তি তোমার বিশ্ব কর্তৃত্ত্ব তোমার বিশ্বব্যাপিত্ব ভাষায় ব্যক্ত করিয়া ভক্তি দ্বারা যেন নর নারীর মনের সংশয় দূর করিতে পারি। আর ভক্তির প্রভাবে ভক্ত হইয়া নরনারী ভক্তিভাবে তোমায় ডাকিয়া এবং তোমায় ভালবাসিয়া যাহাতে ভবসাগর পার হইতে পারে তাহার সুপথ যেন দেখাইতে পারি।

হে বিশ্বগুরু!
দেখ যেন অভিমান পার হইতে আসিয়া লক্ষ্যভ্রষ্ট না করে। আর শক্তি দিও ভাব প্রকাশ করিতে গিয়া যেন ভ্রান্ত মতের অনুসরণ না করি। তুমি জ্ঞান দাও, বিজ্ঞান দাও, বিবেক দাও, ধৈর্য্য দাও, ধারণা দাও, তোমার প্রদত্ত শক্তি বলে যেন সত্যের প্রভার দিবানিশি হৃদয়ে জাগরুক থাকে আর অকপট হৃদয় নির্ভর প্রাণে, সরল ভাষায় সরলভাবে যেন পবিত্র আর্য্য ধর্মতত্ত্ব ব্যক্ত করিতে পারি। দীনের আজ ইহাই প্রার্থনা।

Photo Credit: Collected

Leave a Reply